OnePlus 9 Pro এর বাংলা রিভিউ

OnePlus 9 Pro এর বাংলা রিভিউ

মোবাইল প্রেমীদের জন্য সুখবর!!  বিশেষ করে যারা ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন ব্যবহারকারী তাদের জন্য OnePlus  নিয়ে এলো OnePlus 9 Series smartphone.   ওয়ানপ্লাস তাদের এই স্মার্টফোনটিকে  Samsung S21 এর মতো করেই ডিজাইন করেছে । যেহেতু এটি একটি ফ্লাগশিপ লেভেলের স্মার্টফোন তাই এখানে আমাদের প্রত্যাশা একটু বেশি থাকবে । এখন দেখতে হবে প্রত্যাশা এবং প্রাপ্তির মধ্যে কতটা সামঞ্জস্য হয়েছে । ওয়ানপ্লাস এর প্রচার-প্রচারণা অনুসারে যতটুকু আন্দাজ করা যাচ্ছে তাতে মনে হচ্ছে যে এটা সত্যিই একটা অসাধারন স্মার্টফোন হতে চলেছে। আজকে আমরা OnePlus 9 অথবা ওOnePlus 9 Pro ফোনটি সম্পর্কে প্রধান প্রধান তথ্যগুলো জানব ।

সর্বপ্রথম নজর দেবো ক্যামেরার দিকে

বরাবরের মতো অন প্লাস যেহেতু ফ্লাগশিপ মডেলের স্মার্টফোন নিয়ে এসেছে তাই এবারও তারা ক্যামেরার দিক থেকে নতুনত্ব আনার চেষ্টা করেছে।  OnePlus 9 এ মোট চারটা ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে  এবং প্রত্যেকটি ক্যামেরায় দুর্দান্ত । এটাতে প্রাইমারি ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে 48 MP Main Camera সেন্সর হিসেবে রয়েছে Sony IMX789, 1/1.43’’, 23mm, ƒ/1.8, OIS, 7P যেটা কিনা আরো ভালো মানের ছবি এবং ন্যাচারাল মানের ছবি প্রদান করতে সক্ষম । বর্তমানে আল্ট্রা ওয়াইড ক্যামেরা প্রচার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।  তাইতো ওয়ানপ্লাস এবার নিয়ে এসেছে 50 MP Ultra-Wide Camera সেন্সর হিসেবে রয়েছে Sony IMX766, 1/1.56’’, 14mm, ƒ/2.2, Freeform Lens, 7P এছাড়া রয়েছে 8 মেগাপিক্সেল এর টেলি ফটো ক্যামেরা । এবং 2.4 মেগাপিক্সেল এর Mono Camera.

ফ্রন্ট ক্যামেরা হিসেবে থাকছে  16 মেগাপিক্সেল এর Sony IMX471 ক্যামেরা । 


ডিসপ্লে হিসেবে যা থাকছে 

OnePlus 9 pro তে থাকছে  6.7 inches যার ধরন হচ্ছে 120 Hz Fluid AMOLED with LTPO যেটা কিনা আরো রিফ্রেশ এবং ন্যাচারাল কোয়ালিটির পিকচার অথবা ভিডিও দেখাতে সক্ষম হবে  সেইসাথে গেমিং পারফরম্যান্সের জন্য অনেক ভালো হবে। ডিসপ্লে প্রটেকশন এর জন্য রয়েছে কর্নিং গরিল্লা গ্লাস তবে কোন ভার্সনের গ্লাস তা উল্লেখ করা হয়নি । সেইসাথে সচরাচর কমন কিছু ফিচার তো অবশ্যই রয়েছে যেমন Hyper Touch, Reading Mode, Night Mode, Vibrant Color Effect Pro, Motion Graphics, Smoothing, Ultra-high Video Resolution, Adaptive Display. 

চলুন এবার পারফরম্যান্স সম্পর্কে জেনে নেই 

এটাতে প্রসেসর হিসেবে থাকছে Qualcomm® Snapdragon™888 এবং অপারেটিং সিস্টেম হবে OxygenOS based on Android™ 11 যেহেতু এটাতো একটা ভালো প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে তাই আশা করা যায় এটা প্রত্যাশা এবং প্রাপ্তির সামঞ্জস্য করতে পারবে । জিপিইউ হিসেবে রয়েছে Adreno 660 এবং র‍্যাম হিসেবে থাকবে 8 জিবি এবং 12 জিবি LPDDR5 ভেরিয়েন্ট যেটা নিঃসন্দেহে একটা ভালো মানের  মেমোরি । ইন্টার্নাল মেমোরি হিসেবে থাকছেন 128 জিবি এবং 256 জিবি ভেরিয়েন্ট । 


যেহেতু এটি একটি ফ্লাগশিপ মডেলের স্মার্টফোন সেই হিসেবে ব্যাটারির পরিমাণটা আমাকে হতাশ করেছে।  সাধারণত entry-level অথবা মিড রেঞ্জ লেভেলের স্মার্টফোনগুলোতে 4500 এমএইচ ব্যাটারি ব্যবহার করা হয় সেই তুলনায় ওয়ানপ্লাস 9 প্রো আমাদেরকে হতাশ করেছে । তারা চাইলেই আর একটু ক্ষমতাসম্পন্ন ব্যাটারি ব্যবহার করতে পারত । তবে এটাতে 50ওয়াটের ওয়ারলেস ফাস্ট চার্জিং টেকনোলজি রয়েছে যা নিঃসন্দেহে একটা ভালো দিক । 

বক্সে যা যা থাকছে 

OnePlus 9 Pro 5G, Warp Charge 65 Power Adapter, Warp Charge Type-C to Type-C Cable, Quick Start Guide, Welcome Letter, Safety Information and Warranty Card, LOGO Sticker, Screen Protector (Open Market only), SIM Tray Ejector. তারমানে ওয়ানপ্লাস আমাদেরকে ফোনের সাথে চার্জার দিচ্ছেন । ভাগ্যিস এ ব্যাপারে তারা আইফোন কে ফলো করেনি তাহলে হয়তো আমাদের পকেট থেকে চার্জার বাবা আরো কিছু টাকা  নিতে পারতো। কারণ এত দাম দিয়ে যেই লোকটা একটা স্মার্টফোন কিনতে পারবে সে অবশ্যই চার্জার কেনার ব্যাপারে কার্পণ্য বোধ করবে না । 


ডিজাইনের কথা কি বলব 

ডিজাইনের দিক থেকে ওয়ানপ্লাস আবারো সবাইকে চমকে দেওয়ার মতো কান্ড ঘটালো।  সত্যিই দেখতে খুবই খুবই প্রিমিয়াম লুকিং।  স্যামসাং এস টুয়েন্টি ওয়ান যেমনিভাবে দেখতে খুবই প্রিমিয়াম লুকিং সে দিক থেকে বিবেচনা করলে এই স্মার্টফোনটি অসাধারণ। স্মার্টফোনটি ব্যাকপার্ট জাস্ট ওয়াও । ক্যামেরা ডিজাইনটি তো আরো বেশি অ্যাট্রাক্টিভ । সেই সাথে ডিসপ্লে রেজুলেশন ডিসপ্লে কোয়ালিটি সবথেকে স্মার্টফোনটি অসাধারণ একটি স্মার্টফোন । যারা ফ্লাগশিপ মডেলের স্মার্টফোন গুলো পছন্দ করে তাদের জন্য নিঃসন্দেহে এটা একটা ভালো ফোন হতে চলেছে । 

একনজরে OnePlus 9 Pro এর স্পেসিফিকেশন 

Full Specification of OnePlus 9 Pro

Network 2G, 3G, 4G, 5G

Screen

Size 6.7 inches, 108.4 cm2 (~90.3% screen-to-body ratio)
Resolution 1440 x 3216 pixels, 20:9 ratio (~525 ppi density)
Type LTPO Fluid2 AMOLED, 1B colors, 120Hz, HDR10+, 1300 nits (peak)
Protection  Corning Gorilla Glass Always-on display

Hardware and Software

Processors Octa-core (1x2.84 GHz Kryo 680 & 3x2.42 GHz Kryo 680 & 4x1.80 GHz Kryo 680
Chipset Qualcomm SM8350 Snapdragon 888 (5 nm)
OS Android 11, OxygenOS 11
GPU Adreno 660

Camera

Back Camera -48 MP, f/1.8, 23mm (wide), 1/1.43", 1.12µm, omnidirectional PDAF, Laser AF, OIS
-8 MP, f/2.4, 77mm (telephoto), 1.0µm, PDAF, OIS, 3.3x optical zoom
-50 MP, f/2.2, 14mm (ultrawide), 1/1.56", 1.0µm
-2 MP, f/2.4, (depth)
Front Camera 16 MP, f/2.4, (wide), 1/3.06", 1.0µm
Feature Auto-HDR
Video 1080p@30fps, gyro-EIS

Memory Type

Internal 128GB 8GB RAM, 256GB 12GB RAM
Memory Slot No

Battery

Type Li-Po 4500 mAh, non-removable
ChargingFast charging 65W, 1-100% in 29 min (advertised)
Fast wireless charging 50W, 1-100% in 43 min (advertised)
USB Power Delivery

এবার তাহলে শেষ করি 

স্মার্টফোন মার্কেটে এত বেশি ব্র্যান্ড এর প্রচলন শুরু হয়ে গিয়েছে এখন আমরা সাধারন মানুষেরা বুঝতে পারি না কোনটা রেখে কোনটা কিনব।  যদিও মাঠ ফোনের সিংহভাগ অংশ অকেজো হয়ে থেকে যায়।  মানে আপনি একটা স্মার্ট ফোন কিনলেন কিন্তু সেটাকে যদি যতগুলো ফিচার রয়েছে সবগুলোকেই ব্যবহারে বা কাজে লাগানো না যায় অথবা সুযোগ না হয় তাহলে কেনই বা এত দাম দিয়ে মার্কেটে যাবো । এটা আমার একান্ত ব্যক্তিগত মতামত কেনা অথবা না কেনা সম্পূর্ণটাই আপনার মতামতের উপর নির্ভর করছে । 

কমেন্ট করুন

0 Comments