বিশ্বকাপ সুপার লীগে বাংলাদেশের অবস্থান ২০২১

 বিশ্বকাপ সুপার লিগ কি 

২০২০-২০২৩ আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগ হচ্ছে এক ধরনের একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার উদ্বোধনী সংস্কার । এখানে 2020 সাল থেকে শুরু করে 2023 সাল পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের মধ্যে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সর্বশেষ 2023 ক্রিকেট বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের কাজ হিসেবে এটা কাজ করবে । যার সর্বপ্রথম ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল 30 জুলাই 2020 ইংল্যান্ড এবং আইল্যান্ড এর মধ্যে। এই খেলায় মোট 13 টি আন্তর্জাতিক দল অন্তর্ভুক্ত থাকবে এর মধ্য থেকে বারটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের পূর্ণ সদস্য 2015-17 আইসিসি ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশিপ নেদারল্যান্ডস এই প্রতিযোগিতার জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছে । এখানে প্রত্যেকটি দল একটি করে ওডিআই সিরিজ খেলবে।  চারটি জিনিস অনুষ্ঠিত হবে নিজ দেশের মাঠে এবং অপর চারটি সিরিজ অনুষ্ঠিত হবে বিপক্ষ দলের খেলার মাঠে।  উল্লেখ থাকে যে, প্রতিদিন একটি করে ওডিআই সিরিজ খেলবে যেখানে ১২টি দলের মধ্যে ৮টি দলের সাথে খেলা হবে । 

2023 সালের বিশ্বকাপ সুপার লিগের তালিকা 

বিশ্বকাপ সুপার লিগ কিভাবে এলো 

বিশ্বকাপ সুপার লিগের কনসেপ্ট টা হচ্ছে মূলত 2023 সালের বিশ্বকাপ টি-টোয়েন্টি সিরিজ আয়োজনের ক্ষেত্রে বাছাইপর্ব হিসেবে কাজ করবে। এটা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা কর্তৃক আয়োজিত টেস্ট ফরম্যাটের একটি একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার প্রক্রিয়া । 

কারা অংশ নিবে সুপার লিগ বিশ্বকাপে 

ইতিমধ্যে আমরা বলেছি সুপার লিগ বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী দলের সংখ্যা ১২টি । এইবারও ডিপজল একে অপরের বিপক্ষে মোট আটটি  ম্যাচের মাধ্যমে মুখোমুখি হবে। নিম্নে 2023 ক্রিকেট বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জনের জন্য যে সকল দেশ সুপার লিগ বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে চলেছে তার তালিকা দেওয়া হল। 

  •  আফগানিস্তান
  •  অস্ট্রেলিয়া
  •  বাংলাদেশ
  •  ইংল্যান্ড
  •  ভারত
  •  আয়ারল্যান্ড
  •  নিউজিল্যান্ড
  •  পাকিস্তান
  •  দক্ষিণ আফ্রিকা
  •  শ্রীলঙ্কা
  •  ওয়েস্ট ইন্ডিজ
  •  জিম্বাবুয়ে
  • সেইসঙ্গে আইসিসি বিশ্ব ক্রিকেট লিগ চ্যাম্পিয়নশিপ বিজয়ী
  • নেদারল্যান্ডস 

বাছাইপর্বে কোন কোন দল পড়ছে 

বিশ্বকাপের জন্য শীর্ষ সাতটি দল এবং 2023 সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আয়োজক দেশ ভারত সহ মোট আটটি দল স্বয়ংক্রিয়ভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলায় অংশগ্রহণ করবে শেষ হতে বাকি পাঁচটি দল অনির্ধারিত সংসদ সদস্যদের সাথে বাছাইপর্ব খেলবে । এই বাছাই পর্বের খেলা থেকে মাত্র দুইটি দলকে বিশ্বকাপ খেলার জন্য অনুমতি প্রদান করা হবে । 

সুপার লিগের বাছাই প্রক্রিয়া বা নীতি 

Icc-cricket-world-cup সুপার লিগ চালু করেছে মূলত ওয়ানডে ক্রিকেটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়াতে ও সবগুলো দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ এর ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে । আগামী 2023 সালে ভারতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বিশ্বকাপে মোট 10 টি দল অংশগ্রহণ করবে।  যেহেতু ভারত আয়োজক দেশ তাই তারা সরাসরি বিশ্বকাপ খেলায় অংশগ্রহণ করতে পারবে বাকি সাতটি দল সরাসরি বিশ্বকাপের আসরে অংশগ্রহণ করতে পারবে যারা পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকবে । সেই হিসেবে মোট আটটি দল সরাসরি বিশ্বকাপ খেলায় অংশগ্রহণ করছে কিন্তু বাকি দুইটি দল খেলায় অংশগ্রহণ করতে হলে সুপার লিগের শীর্ষে থাকা দলগুলো কোয়ালিফায়ার টুর্নামেন্টের মুখোমুখি হবে সহযোগী দেশগুলোর। 

বাছাইপর্বে যেসকল দেশ থাকছে

আইসিসির সহযোগী মোট সাতটি দেশ স্কটল্যান্ড ও সংযুক্ত আরব আমিরাত নেপাল নামিবিয়া ওমান পাপুয়া নিউগিনি এবং যুক্তরাষ্ট্র 2019 সালের আগস্ট থেকে শুরু করেছে তাদের ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপ লিগ টুর খেলা । উপরে উল্লেখিত চারটি দেশ মোট 36 টি ম্যাচ করে খেলবে 2022 সাল পর্যন্ত । এখান থেকে র্যাংকিংয়ে সেরা তিন দল সুপার লিগের শেষ পাঁচটি দলের সঙ্গে বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে অংশগ্রহণ করবে।  আর সেখান থেকেই বিশ্বকাপের বাকি 2 টি দল অংশগ্রহণ করবে । 

বাংলাদেশে কোন কোন দলের বিপক্ষে খেলবে 

বাংলাদেশে মোট আটটি ম্যাচ খেলবে যেখানে চারটি হবে দেশের মাটিতে এবং বাকি চারটি হবে দেশের বাইরে। দেশের মাটিতে যাদের বিপক্ষে খেলবে তারা হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ,  শ্রীলংকা,  ইংল্যান্ড এবং আফগানিস্থান । দেশের বাইরে যাদের সাথে খেলবে তারা হচ্ছে নিউজিল্যান্ড,  দক্ষিণ আফ্রিকা,  জিম্বাবুয়ে এবং আয়ারল্যান্ড । 

বিশ্বকাপ সুপার লিগে বাংলাদেশের অবস্থান

এবার আমরা সুপার লিগে বাংলাদেশের অবস্থান সম্পর্কে ধারণা নেব।  যেহেতু সুপার লিগের পয়েন্ট টেবিল একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া তাই এখানকার অবস্থান ওঠানামা করে প্রতিনিয়ত।  আগামী বিশ্বকাপ খেলা আসা অব্দি বাংলাদেশের অবস্থান বিভিন্ন ভাবে ওঠানামা করতে পারে । তবে বর্তমানে বাংলাদেশের অবস্থান খুবই ভালো।  আর যদি এই অবস্থান টা কে ধরে রাখতে পারে তাহলে বিশ্বকাপে নিশ্চিত অংশগ্রহণ করতে পারবে। 

বাংলাদেশ কি পারবে সরাসরি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে ? 

বাংলাদেশ ক্রিকেট কাউন্সিলের কমিটির সদস্যগণ দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন যেন আগামী 2023 সালের বিশ্বকাপ খেলতে পারে।  এর জন্য যত কিছু করা প্রয়োজন প্রায় সব কিছুর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।  একই সাথে বিশ্বকাপ খেলায় অংশগ্রহণ করার পাশাপাশি কিভাবে বিশ্বকাপ ট্রফি দেশে আনা যায় সে ব্যাপারে সব ধরনের পরিকল্পনা করা হয়েছে।  বাংলাদেশের খেলা যেভাবে এগোচ্ছে অর্থাৎ পয়েন্ট টেবিলে যে অবস্থান ধরে রেখেছে যদি আগামীতে সেটা ধরে রাখতে পারে তাহলে অবশ্যই আগামী বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ভালো কিছু করতে পারবে বলে সকলের প্রত্যাশা। 

যেভাবে পয়েন্ট পেতে হবে

সব সিরিজে মোট 30 টি পয়েন্ট থাকবে।  প্রতিটি ওয়ানডে সিরিজে থাকবে 10 পয়েন্ট।  যে দল জিতবে তারা পাবে 10 পয়েন্ট আর পরাজিত দল পাবে 0 পয়েন্ট।  যদি সেটাই হয় বা পন্ড হয়ে যায় তাহলে 10 পয়েন্ট সমান ভাগে ভাগ করে দেওয়া হবে দুই দলের মধ্যে। 

পরিবর্তিত কিছু নিয়ম

এবারের বিশ্বকাপ সুপার লিগের খেলায় কয়েকটা নতুন নিয়মের সংযোজন করা হয়েছে আর তা হলো। দুটি গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন এসেছে বিশ্বকাপ সুপার লিগের খেলায়। প্রতি ম্যাচে দুইটি দল এই দুইটি করে ডিআরএস ব্যবহার করতে পারবে। ফ্রন্ট ফুট no-ball এর সিদ্ধান্ত দেবে টেলিভিশন আম্পেয়ার । 


কমেন্ট করুন

0 Comments