বিরিয়ানি রান্নার রেসিপি | বিরিয়ানি তৈরি করার সহজ উপায়

বিরিয়ানি তৈরি করার সহজ উপায়

বিরিয়ানি রান্নার রেসিপি । আমরা সবাই বিরিয়ানি খেতে খুব ভালোবাসি বা পছন্দ করি । কিন্তু সমস্যা হচ্ছে  ব্যস্ততার কারণে আমাদের অনেকেরই বিভিন্ন ধরনের  রান্নার জন্য এক্সট্রা সময় থাকেনা । সময় এর কারণে অনেকেই  বিরিয়ানি রান্না করে খেতে চান না । 

ব্যস্ততার  কারণে  বিরিয়ানি তৈরি করার কোনো মন-মানসিকতা থাকেনা । তাই আজ আমি বলব মনে আনন্দ রেখে,  কিভাবে অল্প সময়ে  বিরিয়ানি তৈরি করা যায় । কেননা যেকোনো কাজে যদি অল্প সময়ের মধ্যেই হয়ে যায় তাহলে সব কাজেই সহজ মনে হয় । 

কিছু কিছু রান্না করতে গিয়ে আসলেই অনেক সময় লাগে ,  বা কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায় ।  কিন্তু তাই বলে কি  ভিন্ন ভিন্ন মজার খাবার গুলো এড়িয়ে যাবো ।  তাই মজাদার খাবার গুলো দূরে না রেখে, বরঞ্চ আমরা কাছে আনার চেষ্টা করি । 

আমরা যদি বিরিয়ানি খুব সহজ ভাবে করতে পারি । তাহলে একটু সময় হলে আমরা বিরিয়ানি তৈরি করে খেতে পারব । 

মজাদার খাবার হচ্ছে বিরিয়ানি । তাহলে চলুন জেনে নেই কিভাবে বিরিয়ানি রান্না করা যায় ।  একদম বাঙালি  ভাবে বা সহজ ভাবে । এখন আমরা জেনে নেব খুব সহজভাবে বিরিয়ানি রান্না করার রেসিপি  । 

বিরিয়ানি রান্না করার সময় , প্রস্তুতির সময়   30 মিনিট । রান্নার সময়  1 ঘন্টা । মোট সময় লাগবে 1 ঘন্টা 30 মিনিট । 

 এই উপকরণ গুলো মুরগির মাংস দিয়ে রান্না করার জন্য প্রয়োজন হবে।  

প্রয়োজনীয় উপকরণ

প্রথম ধাপে 

  • ১.মুরগির মাংস -- 1 কেজি । 
  • ২. আদা বাটা  ---পরিমাণমতো ।
  • ৩. রসুন বাটা  --  পরিমাণমতো ।
  • ৪. ধনিয়ার গুড়া  --- 1 চা চামচ ।
  • ৫. জিরার গুড়া --- পরিমাণমতো
  • ৬. মরিচের গুঁড়া------- 2 টেবিল চামচ
  • ৭. টক দই --------  2 টেবিল চামচ
  • ৮. গরম মসলার গুঁড়া  ---- পরিমাণমতো ।
  • ৯. দারচিনি এলাচ তেজপাতা - পরিমাণমতো ।
  • ১১.   জয়ফুল  গুড়া   ----- ১/২ চা চামচ ।
  • ১২. লবণ  --- স্বাদমতো ।
  • ১৩ পেঁয়াজ কুচি ---  পরিমাণমতো ।
  • ১৪.. কাঁচা মরিচ কুচি  --- পরিমান মত । 
  • ১৫. সয়াবিন তেল ---  5 টেবিল চামচ ।
  • ১৬. ঘি ------ তিন  টেবিল চামচ । 

মুরগির মাংস দিয়ে বিরিয়ানী  রান্না করার পদ্ধতি।

তেল ,ঘি, পেঁয়াজ কুচি,কাঁচামরিচ কুচি  ,ছাড়া  ।প্রথমে মুরগির মাংস গুলো ধুয়ে নিন ।   এরপর বাকি যে উপকরণ গুলো রয়েছে সেগুলো মুরগির মাংসের সঙ্গে মাখিয়ে নিন । ভালো করে মাখিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রেখে দিন এক ঘন্টার জন্য । 

এরপর চুলায় একটি পাত্রে বসিয়ে সোয়াবিন তেল ও ঘি  পাত্রে দিয়ে হালকা গরম করে নিন ।  তেল গরম হয়ে গেলে এরমধ্যে পেঁয়াজ কুচি  , কাঁচামরিচ কুচি,  দারচিনি , এলাচ , তেজপাতা , দিয়ে কিছুক্ষণ ভাজতে থাকুন । পেঁয়াজ কুচি বা অন্য উপকরণগুলো ব্রাউন কালার হয়ে গেলে । মেরিনেট করা মুরগির মাংস পাত্রের দিয়ে দিন । 

এরপর রান্না করে নিন । মাংস সিদ্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত রান্না করে নিতে থাকুন ।  মাংস রান্না হয়ে গেলে একটা সাইডে নামিয়ে রাখুন । 

দ্বিতীয় ধাপঃ

  • ১. পোলার চাল বা বাসমতি চাল ------  এক কেজি ।
  • ২. আদা বাটা -------  পরিমাণমতো ।
  • ৩. রসুন বাটা -------  পরিমাণমতো ।
  • ৪. তেজপাতা----------পরিমাণ মতো ।
  • ৫.  দারচিনি  --------  পরিমান মত। 
  • ৬. এলাচ  ------------  পরিমাণমতো । 
  • ৭..ঘি/ --------             3 টেবিল চামচ ।
  • ৮. সয়াবিন তেল -----  2 টেবিল চামচ । 
  • ৯. লবণ ----------------- স্বাদমতো । 
  • ১০. চাউলের জন্য গরম পানি  ------- আপনি  যে মগ দিয়ে চাউল  দিবেন , ঠিক সেই মগ দিয়ে পানি দিতে হবে।  চাউল যদি তিন কাপ হয় ,  তবে পানি হবে 6 কাপ । 
  • ১১.গোলাপজল ------- ২-৩ ফোটা । 
  • ১২. কেওড়া জল ------ ৪-৫ ফোটা ।
  • ১৩.পেঁয়াজ কুচি ------ ১/২  কাপ ।

চলুন দেখে নেই   বিরিয়ানি  রান্নার পদ্ধতি

প্রথমে সকল উপকরণ সঠিকভাবে মেনে নেব । প্রথমে আপনার একটি কাজ করতে হবে ।   চুলে দেওয়ার জন্য যে পানি লাগবে সেই পানিটুকু গরম করে ফুটিয়ে নিতে হবে । এরপর চাউল থেকে পানি নিংড়ে নেব । চুলায় একটি   প্যান বসিয়ে পর্যাপ্ত পরিমাণে  তেল ও ঘি দিয়ে গরম করে নেব ।  তেল গরম হয়ে গেলে তেজপাতা  এলাচ, দারচিনি, কিছুক্ষণ ভেজে নেব । 

এর সঙ্গে দিয়ে দেবো পেঁয়াজ কুচি  একটু ভাজা হয়ে গেলে  এরপর আদা রসুন বাটা স্বাদমতো লবণ দিয়ে । প্যানে চাউল দেওয়ার আগে  আপনাকে  করতে নিংড়ানো চাউল গুলো প্যানে দিয়ে অনবরত নাড়তে থাকবো ।  চাউল অনেকক্ষণ  ভেজে নিতে হবে ।  একদম ঝর ঝর করে । এরপর গরম করে রাখা পানি চাউলের ঢেলে দিতে হবে । 

ফুটন্ত গরম পানি দিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখুন । এর মাঝে মাঝে কয়েকবার নাড়াচাড়া দিতে হবে । চাউলের পানি শুকিয়ে গেলে ,  ও চাউল ফুটে গেলে একটু  নেড়েচেড়ে দিয়ে রান্না করা রান্না করা মুরগির মাংস গুলো দিয়ে দিন । সবগুলো উপকরণ দেওয়ার পর ভালো করে নেড়ে ঢেকে রাখুন চার থেকে পাঁচ মিনিট । 

এরপর চুলা থেকে নামিয়ে পরিবেশন করুন ।  কিছু পরিমাণে পেঁয়াজ বেরেস্তা জর্দার রং বিরানির ওপরদিয়ে ঢেকে রাখুন কিছুক্ষণের জন্য ।  এরপর কিছু সালাত দিয়ে দিন   সাজিয়ে নিন ।  যেমন ;  শসা ,  লেবু ,  টমেটো ,  কাঁচা মরিচ , ইত্যাদি ।  সঙ্গে নিয়ে নিন ডিম সিদ্ধ করে লবণ দিয়ে হালকা ভেজে । 

গরম অবস্থায় পরিবেশন করে নিন ।  এরপর সঙ্গে নিয়ে নেই  মিষ্টি দই ।  বিরানি খাওয়ার পর মিষ্টি দই একটি খাবার । 

আমরা এখন জেনে নিয়েছি কিভাবে বিরিয়ানি রান্না করতে হয় ।

Reactions

Post a Comment

0 Comments