গর্ভবতী মায়ের খাবার তালিকা | গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা

গর্ভবতী মায়েদের জন্য প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা

গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা নিয়ে আপনাদের মাঝে আলোচনা করব  । গর্ভবতী অবস্থায় সব ধরনের খাবার খাওয়া যায় না ।  গর্ভকালীন অবস্থায় আপনাকে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে ।  তাই আমরা  গর্ভবতী মহিলাদের জন্য কিছু পুষ্টিকর খাবার তালিকা নিয়ে আলোচনা করব ।  গর্ভকালীন অবস্থায় কি কি খাওয়া যাবে এবং কি কি খাওয়া যাবে না সেগুলো নিয়ে বিস্তারিত বলবো । গর্ভবতী মহিলাদের জন্য তিন মাসের খাবার তালিকা লক্ষ্য করে ।  খুব সহজ উপায়ে সবাইকে বলে দেব আপনারা মনোযোগ দিয়ে একটু পরে নিন । 

 তাহলে চলুন দেখে নেই গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা গুলো কিভাবে খেতে হয় ।

১. ক্যালসিয়াম

গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকার প্রথম ধাপে রয়েছে ক্যালসিয়াম।   গর্ভবতী নারীদের প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম জাতীয় খাবার খেতে হবে । গর্ভবতী অবস্থায় ক্যালসিয়াম শিশুর হাড় গঠনে একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে থাকে ।  গর্ভবতী মা যদি প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম জাতীয় খাবার খেতে পারলে  তাহলে শিশুর হাড় শক্ত হবে । 

তাই আপনার প্রথম তিন মাস নিয়ম ক্যালসিয়াম জাতীয় খাবার খেতে হবে ।  কচু শাক ,  লাল শাক  দুধ দই ছোট মাছ বিভিন্ন পদের , ইত্যাদি ।  এসবের মধ্যে  প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম রয়েছে । আপনি বড় মাছের কাটা গুলো খেতে পারেন ।

 গর্ভবতী অবস্থায় আপনাদের প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবার খেতে হবে তা না হলে অনেক সময় মায়েদের দেখা যায় ক্যালসিয়ামের অভাবে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হতে পারে । গর্ভবতী অবস্থায়

 মায়েদের ক্যালসিয়ামের অভাবে হাত পা জ্বালাপোড়া করে শরীরের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দেয় ।  এসব বিভিন্ন ধরনের সমস্যা গুলো শুধুমাত্র ক্যালসিয়ামের অভাবে হয়ে থাকে । এসবের বাহিরে যদি কোন সমস্যা হয়ে থাকে তবে আপনি ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন । 

২. আয়োডিন

আয়োডিন জাতীয় খাবার সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে গর্ভকালীন অবস্থায় ।  কারণ আয়োডিনের অভাবে শিশুর প্রতিবন্ধী সমস্যা দেখা দিতে পারে । তাই আমাদের সবসময় খেয়াল রাখতে হবে গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকায় বা সবসময় কখনো যেন আয়োডিনের অভাব না হয় । 

 আয়োডিনের অভাব আপনার শিশু  প্রতিবন্ধী হতে পারে । তাই গর্ভবতী মায়েদের আয়োডিনযুক্ত খাবার খাওয়া খুবই দরকার ।  আয়োডিনযুক্ত খাবার গুলো জেনে নিন ।  দুধ ,  চিংড়ি মাছ, সিদ্ধ ডিম, টক দই, কলা, সামুদ্রিক মাছ, ইত্যাদি। এসবে  রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়োডিন । 

৩. জিংক

গর্ভবতী মায়েদের জন্য কিছু খাবার তালিকা ।  জিংক জাতীয় খাবার তাদের জন্য উন্নত মানের একটি খাবার । গর্ভবতী মায়ের যদি জিংক এর সমস্যা দেখা দেয় তাহলে শিশুর জন্মানোর সময় কম ওজনের জন্ম নেয় । 

জিংকের অভাবে কম ওজনের শিশু জন্ম নেওয়া সমস্যা হয়ে থাকে ডায়াবেটিস  , নিউমোনিয়া , জিহ্বায় ক্ষত,মুখের চারপাশে বিভিন্ন ক্ষত ক্ষত দেখা দিতে পারে ।

 জিহ্বা জাতীয় খাবার গুলো হচ্ছে ,   গরুর মাংস , ভেড়ার মাংস ,  ডিম ,   খাসি গরুর  কলিজা ,  মসুর ডাল , সোয়াবিন ,  , বাদাম ,  আটার রুটি , ইত্যাদি এসব নিয়ম অনুযায়ী খেতে হবে তাহলে জিংক এর সমস্যা দেখা দেবে না । গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা

৪. আইরন

আয়রনের অভাবে অনেক ধরনের সমস্যা দেখা দেয় ।  অনেক শিশু জন্মের পর রক্তস্বল্পতা দেখা দেয় , আয়রন জাতীয় খাবার শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় । তাই যেসব খাবারে আয়রন রয়েছে সেগুলো খেতে হবে । আয়রন যুক্ত খাবারের তালিকা ,  লাল শাক ,  কচু শাক ,  পালং শাক , বাদাম , ছোলা ,  ডালিম ,  শিং মাছ ,  মাগুর মাছ,  ইত্যাদি । এই খাবারগুলো সবসময় বেশি বেশি খাবেন তাহলে আয়রনের ঘাটতি হবে না । 

৫. ভিটামিন 

ভিটামিন জাতীয় খাবার শরীরের জন্য কোনোভাবেই ঘাটতি করা যাবে না ।  ভিটামিন ঘাটতির কারণে শিশু ও মা এর বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয় ।  অনেক ভূমিকা পালন করে ভিটামিন এ ও ভিটামিন ডি এ দুটোর কারণে শিশুর দৃষ্টি শক্তি হীনতা হতে পারে । এসব বলে থাকে ডাক্তাররা । 

তাই ভিটামিন-এ কার্যকরী উপাদান শুধু চোখের জন্য । সবকিছু সবজীতে রয়েছে ভিটামিন এ ।  মলা মাছ ,  ধরা মাছ ডিমের কুসুম ,  এসব হলো ভিটামিন । ভিটামিন ডি, এটি দেহের অন্ত্র থেকে ক্যালসিয়ম গুলো শোষণ করে থাকে । 

ভিটামিন ডি এর অভাবে শিশুর হাড় পরিপূর্ণ ভাবে বৃদ্ধি পায় না।এতে শিশুর হাড় বাঁকা হয়ে যেতে পারে । ভিটামিন ডি জাতীয় খাবার গুলো জেনে নিন ।  সমুদ্রের মাছ  , সিদ্ধ ডিম  , দুধ , দই ,  পনির  , গরুর কলিজা  , মাছের তেল , মাশরুম ,  ইত্যাদি । এসবে  রয়েছে ভিটামিন ডি । 

গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা জেনে নিন

গর্ভবতী মায়েদের জন্য প্রথম তিন মাস খুব গুরুত্ব দিতে হবে । তাই গর্ভবতী হওয়ার প্রথম দিন থেকে আপনার ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চলতে হবে ।  নিয়মিত  ব্ল্যাক পেশার পরীক্ষা করাতে হবে । গর্ভকালীন অবস্থায় খাবারের তালিকা সঠিকভাবে খেতে হবে এবং এর সঙ্গে হালকা ব্যায়াম করতে হবে । 

উপরে গর্ভবতী মায়েদের জন্য খাদ্য তালিকা বলে দেওয়া হয়েছে সেগুলো মেনে চলতে পারলে আপনার জীবনে অনেক সুযোগ-সুবিধা বা বিভিন্ন সমস্যা দূর হতে সাহায্য করবে ।  এর পরবর্তী যদি আপনি ডাক্তারের সাথে পরামর্শ রাখতে চান তাহলে সে  করতে পারবেন । এখানে উল্লেখিত সবকিছু ঠিকঠাকভাবে বলা হয়নি ।  তাই আপনি চাইলে ডাক্তারের পরামর্শ থাকতে পারেন  এবং দুই মাস পর পর ওজন মেপে নিবেন ।

গর্ভকালীন অবস্থায় যেসব খাবার খাওয়া  একদম নিষেধ সেগুলো জেনেনিন  নিন ।            

১. চা , কফি , ক্যাফেইন যুক্ত খাবার খাওয়া নিষেধ । এতে আয়রন  শোষণে বাধা দেয় । 

২. প্রচুর পরিমানে শর্করাযুক্ত খাবার খাওয়া যাবেনা । যেমন ;  ফাস্টফুড আইটেমের কিছু খাবার ,  মিষ্টি ,  তেলেভাজা ইত্যাদি ।  এসব খাবার ভুলেও খাওয়া যাবেনা ।

৩. না বুঝে অতিরিক্ত লবন খাওয়া যাবেনা ।  যাবে না এতে উচ্চ হওয়ার সম্ভাবনা ।

 শেষ কথা

 গর্ভবতী মহিলাদের জন্য আমরা যে তালিকা গুলো নিয়ে আলোচনা করেছি ।  গর্ভবতী মহিলাদের খাবার গর্ভবতী মায়েদের  প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা । গর্ভ অবস্থায় যেসব খাবার খাওয়া যাবে এবং খাওয়া যাবেনা । এসব বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা গর্ভকালীন অবস্থায় মেনে চলতে হয় ।

  তাহলে কোন ধরনের সমস্যা থেকে আপনি বিরত থাকবেন । গর্ভকালীন মহিলাদের জন্য উপরে যে সব তালিকা গুলো বলা হয়েছে সেগুলো নিয়ম অনুযায়ী মেনে চলবেন ।  এর ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলতে হবে ।  এবং প্রতিদিন হালকা ব্যায়াম ।  খুব সকালে ঘুম থেকে ওঠা ।  

আধাঘন্টা থেকে এক ঘন্টা ।  শরীরে একটু রোদ লাগানো  ইত্যাদি।  এসব বিভিন্ন ধর্মের নিয়ম মেনে চলতে পারেন তাহলে যেকোনো সমস্যা থেকে আপনি দূরে থাকবেন ।  তাই আমাদের এই আলোচনা গুলো আপনি একটু পড়ে নিতে পারেন ।  তবে এখানে শেষ করছি । 


Reactions

Post a Comment

0 Comments