পারফেক্ট ছানার রসমালাই রেসিপি

 
পারফেক্ট ছানার রসমালাই রেসিপি
রসমালাই 

সুস্বাদু  মজাদার রসমালাই রেসিপি ঘরে বসে তৈরি করে নিন ।

আমরা বাঙালি  মিষ্টি খেতে খুব পছন্দ করি । তবে মিষ্টি যদি হয় রসমালাই তাহলে তো কোন কথাই নেই । রসমালাই না খেলে আপনারা কখনো বুঝতে পারবেন না কতটা মজাদার একটি খাবার রসমালাই রেসিপি ।

তবে  রসমালাই রেসিপি  আপনি যদি একবার তৈরি করে খেতে পারেন , তাহলে বুঝতে পারবেন রসমালাই কতটা মজাদার একটি খাবার । 

তাই আমি অল্প সময়ের মধ্যে কিভাবে রসমালাই রেসিপি তৈরি করা যায় সে উদ্দেশ্য নিয়ে আলোচনা করব ।  আপনি চাইলে অল্প সময়ের মধ্যে ঘরে বসে তৈরি করে নিতে পারেন  রসমালাই রেসিপি । 

 রসমালাই  সাধারণত দুধ দিয়ে তৈরি করা  সুস্বাদু একটি মিষ্টি খাবার  রসমালাই রেসিপি । অনেকেই হয়তো একটু চিন্তিত হয়ে থাকে কিভাবে ঘরে বসে তৈরি করব  রসমালাই । তবে চাইলে ঘরে বসে ট্রাই করতে পারেন মজাদার সুস্বাদু একটি খাবার  রসমালাই রেসিপি ।

রসমালাই এর জন্য ছানা তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ।

প্রয়োজনীয় উপকরণ
  • দুধ ---------  2 লিটার ।
  • সিরকা -------  3 টেবিল চামচ  ।
  • পানি ----------  3 টেবিল চামচ ।

রসমালাই প্রস্তুত প্রণালীঃ

প্রথমে 2 লিটার দুধ জ্বাল করে  ফুটিয়ে নিন ।  দুধ জ্বাল করে শুধু গুটিয়ে নিতে হবে ঘন করার দরকার নেই ।  এরপর চুলা বন্ধ করে দিয়ে ,  সিরকা ও পানি  মিশিয়ে অল্প অল্প করে দুধের সঙ্গে মিশিয়ে নিন ।  গরম অবস্থায় মিশিয়ে নিতে হবে । খুব দ্রুত মিশিয়ে নিতে হবে । 
এরপর  ছানা তৈরি হয়ে যাবে । 7 থেকে 10 মিনিট পর একটি সাদা পাতলা কাপড় দিয়ে ছানার পানি গুলো ছেঁকে নিন ।  ছানাতে যেন কোন রকম পানি না থাকে । কাপড় ভালো করে বেদে কিছুক্ষণের ঝুলিয়ে রাখুন ।  এরপর অতিরিক্ত পানি গুলো চলে যাবে । 
হাত দিয়ে কখনও ছানার পানি চেপে পানি ফেলে দেবেন না ।  কারণ হাত দিয়ে চেপে নেওয়ার পর  আপনি যে মিষ্টি তৈরি করবেন সেই মিষ্টি গুলো শক্ত হয়ে যাবে ।  এজন্য আপনাকে কিছুক্ষণ কাপড়ে রাখা ছানাগুলো বেদে ঝুলিয়ে রাখতে হবে ।
এখানে আরেকটি কাজ আপনি করতে পারেন সেটা হচ্ছে বড় একটি পাত্রে ছানা নিয়ে ফ্যানের নিচে রাখতে পারেন । তবে খেয়াল রাখতে হবে ছানা গুলো যেন বেশি  ভেজা থাকে ও বেশি শুকিয়ে না যায় । 
এরপর বড় একটি পাত্রে নিয়ে পরিমাণমতো গুড়ো দুধ দিয়ে  হাত দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন ।

তবে এখানে কোন রকম পানি ব্যবহার করা যাবে না । হাত দিয়ে ভালো করে চেপে চেপে  ছানাটা  মিহি করে নিন । 15 থেকে 20 মিনিট ভালো করে মিশিয়ে নিন ।
ছানা ভালো করে মিশিয়ে যাওয়ার পর গোল গোল করে রসমালাই  শেপ  দিয়ে নিন।অনেক ভালো করে শেপ তৈরি করতে হবে যেন কোন রকম ফেটে  ফেটে না যায় । 

রসমালাই মিষ্টি তৈরি উপকরণ 

চিনি----------  1 কাপ ।
পানি ---------  3 কাপ ।
গরম পানি -------- ৩ / ৪ কাপ । 
এলাচ ---- ২ / ৪ পিস ।
প্রথমে চুলায় একটি পাত্রে বসিয়ে , পানি ,  এলাচ , চিনি , একসঙ্গে মিশিয়ে জ্বাল করে নিন । চুলার আঁচ বাড়িয়ে দিয়ে  চিনি গলিয়ে নিন । এই মিশ্রণ কে বলা হয় চিনির সিরা । চিনির সিরা তৈরি হয়ে যাওয়ার পর একটি একটি করে রসমালাই চিনির সিরা দিয়ে দিন । সবগুলো রসমালাই চিনির সিরা তে দেওয়ার পর 5 থেকে 7 মিনিট ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখুন । 
5 থেকে 7 মিনিট পর ঢাকনা খুলে একটু নেড়ে দিন  ।

 এখানে একটি কথা মনে রাখতে হবে ফুটন্ত গরম সীরাতে কখনো মিষ্টি গুলো দেওয়া যাবে না ।  কারণ মিষ্টি গুলো ভেঙে যাবে এবং নষ্ট হয়ে যাবে ।
তাই চুলার আঁচ কমিয়ে   রসমালাই  গুলো শিরার মধ্যে দিয়ে দিন ।   রসমালাই দেওয়ার পর নাড়াচাড়া দেওয়া যাবে না ।  তাহলে  রসমালাই ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে । 
 20 থেকে 23 মিনিট রান্না করে নিন ।  রসমালাই হয়ে যাওয়ার পর নিয়ে নিন ।

 রসমালাই এর জন্য মালাই তৈরীর  প্রয়োজনীয়  উপকরণ

  • দুধ ---------  1 কেজি ।
  • চিনি ---------- স্বাদমতো ।
  • কন্ডেন্সড  মিল্ক --------- 4 টেবিল চামচ ।  ও প্রয়োজনমতো ।
  • জাফরান ফুড কালার ------  অল্প পরিমাণে ।

রসমালাই প্রস্তুত প্রণালীঃ

প্রথমে একটি পাত্রে বসিয়ে ,  পাত্রের মধ্যে দুধ দিয়ে জাল করে ঘন করে নিন ।  দুধ জাল করে  অর্ধেক করে নিন । দুধ ঘন হয়ে যাওয়ার পর কন্ডেন্সড মিল্ক , জাফরান , এরপর  রসমালাই সিরা থেকে তুলে মালাই এর মধ্যে দিয়ে দিন ।  দুই দিকে উল্টে দুধের মালাই ভালো করে  রসমালাই তে মিশিয়ে নিন । সবগুলো দেওয়ার পর 5 থেকে 6 মিনিট ফুটিয়ে নিন । 

 5 থেকে  6 মিনিট পর চুলা থেকে নামিয়ে নিন। এরপর   রসমালাই গুলো ঠান্ডা করে  ফ্রিজ অফ  করে রাখুন ।  ফ্রিজে রাখার পর রসমালাই গুলো একটু শক্ত হয়ে যাবে ।  কিন্তু আপনি যদি কিছুক্ষণের জন্য ফ্রিজ থেকে বাইরে রেখে দেন তাহলে নরম তুলতুলে হয়ে যাবে । 

পরিবেশন করে নিন
রসমালাই  গুলো যদি আপনি গরম গরম রসমালাই এর সঙ্গে মিশিয়ে নিতে পারেন তাহলে ররসমালাই অতি তাড়াতাড়ি নরম হয়ে যাবে ।  এবং বিতর থেকে নরম হয়ে  আসবে ।  এজন্য আপনাকে গরম অবস্থায় রসমালাইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে । 
 রসমালাইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে নেওয়ার পর আপনি উপরে কিছু বাদামকুচি ,  পেস্তা, বাদাম , কাঠ বাদাম  ,কিসমিস  , জাফরান  ইত্যাদি । এসব দিয়ে পরিবেশন করতে পারেন ।

 শেষ কথা এবং বোনাস টিপস্ 

 তৈরি হয়ে গেল মজাদার সুস্বাদু  রসমালাই রেসিপি ।  আপনারা চাইলে অল্প সময়ের মধ্যে বা অল্প উপকরণ দিয়ে ঘরে তৈরি করে নিতে পারেন মজাদার   রসমালাই রেসিপি । 
 এখানে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা রয়েছে ,  সেগুলো হচ্ছে ।

যেকোনো মিষ্টি তৈরি করতে হলে আপনাকে একটি জিনিস খেয়াল রাখতে হবে সেটা হচ্ছে ,  মিষ্টি বেশি জাল করা যাবে না ।  কারণ মিষ্টিগুলো শক্ত হয়ে যাবে 
 এবং মিষ্টির রস গুলো থাকবে সেগুলো একদম শুকিয়ে যাবে ।  এজন্য আপনাকে বুঝে নিতে হবে মিষ্টির পারফেক্ট কাজ গুলো  । 

 রসমালাই হয়ে যাওয়ার পর আপনি রসমালাই চেক দিতে পারেন ।  সেটা হচ্ছে আপনি বড় একটি পাত্রে বেশি করে রসমালাই পানি নিয়ে এরমধ্যে   একটি  রসমালাই  ছেড়ে দিন ।   রসমালাই যদি পানিতে ডুবে যায় তাহলে ভেবে নিতে হবে হয়েছে । 

আমাদের সবসময় সিরা পাতলা রেখে কাজ করতে হবে । কারণ চিনির সিরা যদি ঘন হয়ে যায় তাহলে আপনি মিষ্টিগুলো বেশিক্ষণ জাল করতে পারবেন না ।  কারণ মিষ্টি গুলো শক্ত হয়ে যাবে ।  তাই আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে সেরা যেন একটু পাতলা থাকে ।  মিষ্টিগুলো জাল করতে করতে সিরা ঘন হয়ে যাবে ও সঙ্গে মিষ্টিগুলো হয়ে যাবে । 

এখানে আমরা মালাই তৈরি করে নিয়েছি আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে মালাই তৈরিতে যেন ঘন না হয়ে যায় ।  মালাই তৈরি যদি ঘন হয়ে যায় তাহলে যখন আপনি রসমালাই   এরসঙ্গে মিশিয়ে নেবেন ।  তখন রসমালাই  একদম শক্ত হয়ে যাবে এবং  থাকবে না ।  তাই আপনাকে সবসময় সবকিছুতে পারফেট ভাবে কাজ করতে হবে  । তাহলে ঘরে তৈরিতে যে কোন  মিষ্টি আইটেম সমস্যা হবে না । 

 এর জন্য আপনি চাইলে মেজারমেন্ট কাপ দিয়ে সব উপকরণ গুলো সঠিকভাবে মেনে নিতে পারেন ।  তাহলে আপনার সবগুলো উপকরণ সঠিকভাবে কাজ করা যাবে ।  আমাদের সব সময় খেয়াল রাখতে হবে সবকিছু সঠিকভাবে মেনে নেওয়া । 
Reactions

Post a Comment

0 Comments